November 27, 2022

নতুন ভাষা শেখার সহজ উপায় | জেনে নিন যেকোন ভাষা শেখার সহজ টেকনিকঃ বেশির ভাগ মানুষের কাছে মাতৃভাষা ছাড়া অন্য যেকোনো ভাষা শেখাটা অনেক কষ্টকর। কিন্তু আমাদের বিভিন্ন সময়, বিভিন্ন ভাবে, বিভিন্ন কাজের জন্য, যোগাযোগের জন্য প্রয়োজন পড়ে অন্য ভাষা জানার। ইংরেজি আমাদের আন্তর্জাতিক ভাষা।

মূলত এই ভাষায় আমরা বিশ্বের যে কোন প্রান্তে কথা বলতে পারব। তবুও আমরা অনেকেই রয়েছে যারা ইংরেজিতে কথা বলতে ভয় পাই। মাতৃভাষায় যতটা সাবলীলভাবে কথা বলতে পারি, ইংরেজি অথবা অন্য কোন ভাষাতেই তা সম্ভব হয়ে ওঠে না। কিন্তু আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে নতুন ভাষা শেখার কয়েকটি সহজ উপায়ে সাজেস্ট করব।

আপনারা যারা নতুন ভাষার শেখা কে চ্যালেঞ্জিং মনে করেন, তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল। পাঠক বন্ধুরা, আপনি যদি যেকোনো নতুন ভাষা খুব দ্রুত শিখতে চান তবে আমাদের আর্টিকেলটি সম্পন্ন করুন। অবশ্যই এই কয়েকটি কলাকৌশল আপনাকে যে কোন দেশের যেকোন ভাষা শিখতে সাহায্য করবে।

নতুন ভাষা শেখার সহজ উপায়

আমরা মানুষ সব সময় যেকোনো কাজ করার পূর্বে নেগেটিভ কিছু চিন্তা ভাবনা করি। এক কথায় আমাদের মধ্যে জড়তা কাজ করে, ভুল হতে পারে লোকে কিছু বলবে এমনটা ভেবে মনের মধ্যে আলাদা একটা কল্পনার জগত তৈরি হয়। তাই যারা নতুন ভাষা শেখার জন্য অনেক বেশি আগ্রহী তাদেরকে অবশ্যই এক্ষেত্রে চিন্তা ভাবনাটা কমাতে হবে।

আমরা যদি নিজেদের মতো তৈরি করা কয়েকটি কৌশল অনুসরণ করি তাহলে খুব শীঘ্রই যেকোনো ভাষা শিখে ফেলা সম্ভব। কারণ একটা মানুষ কোন জিনিসকে সম্পূর্ণভাবে তখন আয়ত্ত করতে পারে যখন সে সে বিষয়ের উপর জানতে চায়, জানার প্রবল আকাঙ্ক্ষা থাকে এবং জড়তা কাজ না করে। আসুন জেনে নেই যে কোন দেশের ভাষা শেখার সহজ উপায় সম্পর্কে।

নতুন ভাষা শেখার সেরা টেকনিক

এ পর্যায়ে আমরা হাতেগোনা দশটি কলাকৌশল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। মূলত যেকোনো প্রান্তের যে কোন ভাষা শেখার ক্ষেত্রে এই টেকনিক গুলো কাজে লাগবে। সেটা ইংরেজি ভাষা হোক, তামিল ভাষা হোক, হিন্দি হোক অথবা চায়না। প্রত্যেকটি ভাষা শেখা সম্ভব হবে শুধুমাত্র কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখলে। 

নাম্বার ১. জড়তা দূর করা

যেকোনো নতুন কিছু জানার বা শেখার পূর্বে আমাদের মাঝে সবথেকে বেশি বাধা হয়ে দাঁড়ায় জড়তা। কোন মানুষ যদি জড়তা কাটিয়ে উঠতে পারে তার মধ্যে কোনরকম ভয় কাজ না করে তাহলে যে কোন কিছু আয়ত্ত করা সম্ভব। সেটা ভাষা হোক বা অন্য কিছু। আর ঠিক এই কারণে নতুন কোন ভাষা শিখতে চাইলে মন থেকে সব রকমের ভয় দূর করতে হবে। এই ভয় গুলো মূলত বেশ কয়েক রকমের হবে। সেগুলো হচ্ছে:

  • লজ্জার ভয়
  • ভুল হতে পারে এমন ভয়
  • না পারার ভয়
  • অন্যরা কি ভাববে সেটার ভয়
  • কেউ হাসতে পারে তার ভয় ইত্যাদি ইত্যাদি।

কারণ স্বাভাবিকভাবে একটা মানুষ অন্য কোন ভাষায় কথা বলার সময় বেশ ভয় পায় যদি তার আশেপাশে বা তার সামনে কোন মানুষ থেকে থাকে। আর এই কারণে সর্বপ্রথম নতুন কোন ভাষা আয়ত্ত করার কৌশল হচ্ছে ভয় দূর করা অর্থাৎ জড়তাকে কাটিয়ে নিজেকে একদম ইজিলি ফিল করানো।

নাম্বার ২. আনন্দ অনুভব করা

অবশ্যই নতুন ভাষা শেখার সময় নিজেকে আনন্দে রাখতে হবে। ভয়ের মধ্যে না থেকে বরং নিজেকে এমন বোঝাতে হবে, এই ভাষাটা যদি আমি শিখতে পারি তাহলে আমি সবার সাথে কথা বলতে পারব। আমি অন্য কাউকে এই নতুন ভাষা শেখাতে পারবো! অথবা এই ভাষায় আমি সেই দেশে গিয়ে খুব ভালোভাবে তাদের সাথে আলাপ আলোচারিতা করতে পারব। এমন একটা আনন্দ যদি আপনার মনে থেকে থাকে তাহলে অনেকটাই ইজি হয়ে যাবে নতুন ভাষা শেখার।

তাছাড়াও মজাই মজায় ভাষা শেখার একটা কৌশল আছে। তাই আপনি যে ভাষাটি শিখতে চাইছেন, সে ভাষায় লেখা কোন মজার বই পড়তে পারেন। শুধু তাই নয় মজার মুভি বিভিন্ন পত্রিকা বা কার্টুন দেখতে পারেন। এতে করে এই টেকনিকটা খুব তাড়াতাড়ি কাজে আসবে। 

নাম্বার ৩. ধৈর্য ও অধ্যবসায়

যেকোনো কাজ করার জন্য ধৈর্যের প্রয়োজন পড়বেই। কেউ যদি ধৈর্য ধারণ না করতে পারে তাহলে নতুন কোন কিছু শিখতে পারবে না। সেটা যে কোন কিছু হতে পারে। দেখুন আমরা জন্মের পর থেকে কিন্তু হাঁটাচলা করতে পারি না। শুরুতে আমাদের বারবার হোঁচট খেয়ে পড়তে পড়তে হাটা শিখতে হয়। আর এক্ষেত্রে কিন্তু ধৈর্যধারণের একটা ব্যাপার আছে।

শুধু হাঁটা নয় জীবনের প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে ধৈর্যের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। মানুষের রাগ অভিমান নিয়ন্ত্রণে রাখা বা কোন কাজ শেখা জানার জন্য ধৈর্যের প্রয়োজন পড়ে। আর এ কারণে অবশ্যই ধৈর্যশীল হতে হবে এবং ভাষা যদি খুব তাড়াতাড়ি আয়ত্ত করতে না পারেন তাহলে লেগে থাকতে হবে।

এক কথায় আপনার অধ্যবসয়ের প্রয়োজন আছে ভাষা শেখার ক্ষেত্রে। আপনি যদি ভয় কাটিয়ে জরতা কাটিয়ে উঠে, ধৈর্য ধারণ করে কোন কিছু শেখার চেষ্টা করেছেন তাহলে অবশ্যই আপনি সেটা অল্প সময়ের মধ্যে আয়ত্ত করতে পারবেন।

নাম্বার ৪. নিজের বন্ধু নিজে হওয়া

দেখুন কোন নতুন কিছু অন্য কারো সামনে উপস্থাপন করতে লজ্জা লাগতে পারে। কিন্তু নিজের কাছে যদি নিজে উপস্থাপন করেন তাহলে লজ্জার কিছু নেই। তাই আপনি আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজেই নিজের বন্ধু হয়ে আপনি যে নতুন ভাষাটি শিখতে চাইছেন, সেটা নিয়মিত প্র্যাকটিস করতে পারেন। আর এভাবে আপনি যদি নিয়মিত প্র্যাকটিস করেন তাহলে খুব সহজেই অল্প সময়ের মধ্যে ভাষা শিখে ফেলা সম্ভব।

নাম্বার ৫. একজন সহযোগীর জোগাড়

নতুন কোন ভাষা শেখার জন্য অবশ্যই একটা সহযোগী লাগবে। আপনি যখন নিজেই নিজের বন্ধু হয়ে কোন ভাষা নিয়মিত প্র্যাকটিস করবেন তখন সেই ভাষা আপনার অনেকটাই জানা হয়ে যাবে। কিন্তু এবার আপনি অন্যের সাথে আপনার ভাব বিনিময় করতে পারছেন কিনা, এটা জানার বিষয়। তাই এজন্য এমন একটা সহযোগী খুঁজে বের করা প্রয়োজন যে আপনার সাথে আপনার এই ভাষাতে কথা বলতে পারবে প্লাস আপনার টুকিটাকি ভুল গুলো ধরিয়ে দিতে পারবে। 

নাম্বার ৬. লেখার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে

দেখুন আপনি নিশ্চয়ই স্কুল লাইফে এটা উপলব্ধি করতে পেরেছেন, কোন বিষয়ে যদি আপনি তিন থেকে পাঁচ বার লেখেন তাহলে সে বিষয়টা দশবার পড়ার চাইতেও অনেক বেশি মনে থাকে। লেখার ফলে আমাদের মস্তিষ্ক অনেকটাই সেই বিষয় আয়ত্ত করে ফেলতে পারে।

ঠিক এই কারণে অবশ্যই লেখার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। আপনি যদি কোন ভাষা খুব তাড়াতাড়ি শিখে ফেলতে চান তাহলে নিয়মিত প্র্যাকটিস করবেন এবং তা খাতায় লিখবেন। এতে করে খুব তাড়াতাড়ি যে কোন ভাষা আয়ত্ত করে ফেলা সম্ভব। সুতরাং দ্রুত ভাষা শেখার একটা কৌশল হচ্ছে বেশি বেশি লেখা।

নাম্বার ৭. ভালো শ্রোতা হওয়া

একটা কথা মাথায় রাখা অবশ্যই প্রয়োজন, যেকোনো বিষয়ে খুব ভালোভাবে আয়ত্ত করতে চাইলে অবশ্যই নিজেকে একজন ভালো শ্রোতা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এক কথায় আপনি যদি দেশের যে কোন প্রান্তের যেকোন ভাষা শিখতে চান তাহলে শুনে শুনে শেখার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

কথা বলার আগে কথা শুনতে শেখাটা খুবই প্রয়োজন। শুধুমাত্র শুনে এবং দেখেও অনেক কিছু শিখে ফেলা যায়। আপনি যদি একটা জিনিস এক থেকে দশ বার শোনেন তাহলে অবশ্যই সেই সম্পর্কে আপনার একটা ধারণা তৈরি হবে। সুতরাং নতুন ভাষা শেখার জন্য শ্রোতা হওয়া লাগবে।

নাম্বার ৮. প্র্যাকটিস করতে হবে

আপনি কোন ভাষা জানলেন, সেটা লিখতেও পারেন কিন্তু কখনো অনুশীলন করেন না। আপনি কারো সাথে কথা বলতে পারছেন কিনা সেটা আপনি কখনোই প্র্যাকটিস করেননি। তাহলে কিন্তু আপনার সেই ভাষা শেখা না শেখা প্রায় সমান। ঠিক এ কারণে কোন কিছু জানতে চাইলে এবং সম্পূর্ণভাবে শিখতে চাইলে অনুশীলন করাটা খুব প্রয়োজন। প্র্যাকটিস করুন বারবার আর খুব সহজেই শিখে ফেলুন যেকোন ভাষা। সেটা ইংরেজি হোক হিন্দি হোক তামিল হোক বা আরবি।

নাম্বার ৯. নতুন ভাষায় ইউনিক কিছু তৈরি করা

কোন ভাষা মনে করুন আপনি শিখে ফেলেছেন। এখন সেটা যদি সম্পূর্ণভাবে আয়ত্ত করতে চান তাহলে এক্ষেত্রে আপনাকে অনেক অনেক বই পড়তে হবে। পাশাপাশি সেই ভাষার উপর মুভি দেখতে হবে, গান শুনতে হবে এবং আপনি কার্টুনও দেখতে পারেন। পাশাপাশি নতুন কিছু লেখার অভ্যাস করতে হবে। বা আপনি সেই ভাষার উপরে একটা বই লিখতে পারেন কোন ভিডিও তৈরি করতে পারেন অথবা কোন স্ক্রিপ্ট। এতে করে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার দ্বারা সেই ভাষাটা কতটা শেখা সম্ভব হয়েছে।

নাম্বার ১০. কমফোর্ট জোন থেকে বেরোনো

যখন নতুন একটি ভাষা শেখার চেষ্টা করি আমরা ঠিক তখন আমাদের নিজস্ব গণ্ডি অর্থাৎ আমাদের যে কমফোর্ট জোন আছে তা থেকে আমরা বেরিয়ে আসি। আর এটা বড্ড অস্বস্তির একটা কাজ। তাই অবশ্যই আপনি এই ভুলটা করবেন না। কারণ এই অস্বস্তি থেকে হতাশা আসতে পারে। এজন্য নিজেকে হতাশার মধ্যে থেকে বের করে নিয়ে আসতে আপনি নিজেই নিজেকে ছোট ছোট চ্যালেঞ্জ দিতে শুরু করেন এবং সে চ্যালেঞ্জে জিতে যাওয়ার পর আপনি কোন একটা পুরস্কার জিতবেন এমন কিছু আয়োজন করেন। এর জন্য বাইরে যেতে হবে না। ঘ

রোয়া পরিবেশে আপনি নিজেই নিজেকে চ্যালেঞ্জ করুন এবং নিজের জন্য মনে করুন একটা চকলেট অথবা একটা কলম পুরস্কার স্বরূপ রেখে দিতে। ধরুন আপনি হিন্দি ভাষা শিখবেন। তাই প্রথম টার্গেট আপনি দশটি সাধারণ শব্দ শিখবেন হিন্দিতে। তাই শুরুতে যখন দশটি শব্দ শিখতে পারবেন তখন নিজেকে একটা গিফট দিন। পরবর্তীতে আবার কয়েকটি লাইন শিখুন, লাইনের পর লাইন শিখুন, এরপর কথা বলতে শিখুন আর এভাবে একের পর এক নিজেকে পুরস্কার দিয়ে নিজের ভেতরে একটা আগ্রহ মনোভাব তৈরি করুন। ব্যাস আপনি খুব সহজেই সেই ভাষাটি আয়ত্ত করতে পারবেন।

কত দিনের মধ্যে নতুন ভাষা শেখা সম্ভব?

দেখুন এই পৃথিবীতে কোন কিছুই অসম্ভব নয়। আপনি যদি ল অফ এট্রাকশন, এই কথাটির সাথে পরিচিত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই জানবেন– এই পৃথিবীতে আপনি যা যা চাইবেন সেটা অবশ্যই আপনি পাবেন। সেটা কোন জিনিস হোক বা ভাষা। কারণ এই পৃথিবীতে ল অফ এট্রাকশন এর একটা ব্যাপার আছে। 

তাই ভাষা শিখতে কতদিন সময় লাগবে এটার নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। মেইন কথা হচ্ছে আপনি যেমন চর্চা করবেন, আপনি যতটা সহজ ভাবে নিতে পারবেন, ঠিক তত তাড়াতাড়ি আপনি সেই ভাষায় সম্পর্কে জানতে পারবেন এবং সেই ভাষায় কথা বলতে পারবেন। 

পরিশেষে: তো পাঠক বন্ধুরা আশা করি আমাদের দেওয়া এই কয়েকটি টিপস আপনাদের নতুন ভাষা শেখাতে অনেক হেল্পফুল হবে। যদি কোন মতামত থেকে থাকে আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন সেইসাথে আমাদের এই টিপস গুলো ফলো করে যদি আপনি নতুন ভাষা শিখে ফেলতে পারেন, তাহলে রিভিউ দেবেন। নিয়মিত যেকোন পোষ্টের আপডেট পেতে আর দেশ-বিদেশের খবর সহ আর্নিং ও লার্নিং বিষয়ে যে কোন আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথে থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Subscribe To Our Newsletter